লেটেস্ট খবরবিনোদনভাইরাললাইফ স্টাইলঅফবিটরেসিপি

এই পদ্ধতি মেনে পেয়ারা গাছ চাষ করলে টবেই ধরবে পেয়ারা, ফলন হবে ভালো, শিখে নিন পদ্ধতি

অনেকেই বাড়ির ছাদে পেয়ারা চাষ করতে আগ্রহী। তাদের জন্য আমাদের আজকের এই প্রতিবেদন। স্বাভাবিকভাবেই জমিতে পেয়ারা চাষ করার সাথে বাড়িতে টবে চাষ করার মধ্যে কিছুটা ...

Published on:

অনেকেই বাড়ির ছাদে পেয়ারা চাষ করতে আগ্রহী। তাদের জন্য আমাদের আজকের এই প্রতিবেদন। স্বাভাবিকভাবেই জমিতে পেয়ারা চাষ করার সাথে বাড়িতে টবে চাষ করার মধ্যে কিছুটা পার্থক্য থাকবেই। কিন্তু টবে পেয়ারা চাষ করা বেশ সহজ। সহজে যেমন পরিচর্যা করা যায় তেমনি এক জায়গা থেকে অন্য কোনও জায়গায় তা সরানো যায়।

WhatsApp Group   Join Now
Telegram Group   Join Now

তবে পেয়ারা চাষ করতে হলে প্রথমে দেখবেন যেন টবের আকার ১৮ থেকে ২০ ইঞ্চি হয়। ড্রাম বা টবের আকার যত বড় হয় ততই ভালো। পেয়ারা গাছের জন্য মাটি প্রস্তুত করতে খেয়াল রাখবেন সব পুষ্টি উপাদান যেন মাটিতে থাকে। ১৮ ইঞ্চি টবের জন্য সারের মাত্রা উল্লেখ করলাম-

মাটি তৈরি করার জন্য প্রথমে দুই ভাগ মাটি ও এক ভাগ গোবর সঠিকভাবে মিশিয়ে নেবেন। এরপর ওই মিশ্রনে ১৩০ গ্রাম টিএসপি ও ৭০ গ্রাম এমপি সার মিশিয়ে নেবেন। টবের গোড়ায় ফুটো থাকা প্রয়োজন, পেয়ারা গাছ রোপন করার সময় অবশ্যই তা খেয়াল রাখবেন। সেচের অতিরিক্ত জল পেয়ারা গাছের জন্য ক্ষতিকর।

এই কারণে জল নিষ্কাশনের যথাযথ ব্যবস্থা করে রাখবেন। এছাড়াও অপ্রয়োজনীয় ডালপালা অবশ্যই ছাটাই করবেন। সাধারণত পেয়ারা গাছের পুরনো ডালে কোনো ফল থাকে না। কিন্তু নতুন ডালে বেশ ভালই ফল হয়। পেয়ারা গাছে আপনারা বছরে তিনবার ফুল দেখতে পারবেন। এই কথা মাথায় রেখে ফাল্গুন আষাঢ় ও কার্তিক মাসে আলাদা কিছু সার প্রয়োগ করতে হয়। ৫ কেজি গোবর আর ৮০ গ্রাম ইউরিয়া তার সাথে দেড়শ গ্রাম ফসফরাস ও ১০০ গ্রাম পটাস সার মিশিয়ে গাছের গোড়ায় যথেষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে মাটিতে মিশিয়ে দিতে হবে।

পেয়ারা গাছের রোগ বালাই দমন পদ্ধতি অন্যান্য গাছের তুলনায় কিছুটা আলাদা। পেয়ারা গাছের পাতা নতুন হলে অনেক সময় দেখা যায় পোকা এগুলোকে ফুটো করে দিচ্ছে। যে কারণে ফলনে ব্যাঘাত ঘটে। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ১০ লিটার জলে ১০ গ্রাম ডেরিস বা কুড়ি গ্রাম ডারবাসন মেশাতে হবে। এই সমস্যা সাধারণত ছত্রাকের কারণেই হয়ে থাকে। পেয়ারা গাছে ফুল আসার আগে রিপ কর্ড অথবা ভেজি ম্যাক্স সঠিক মাত্রায় ব্যবহার করে নেবেন।

আর এর পাশাপাশি আপনাদেরকে একটা ইউনিক পদ্ধতি বলব, সেই পদ্ধতিতে পেয়ারা রোপন করলে অল্পদিনেই ছোট্ট গাছে প্রচুর পেয়ারা (Guava) হবে‌-

প্রথমে একটি পরিণত পেয়ারা গাছের পাতা কিছুটা ছেটে নিতে হবে। আর দুটো মোটা ডালের হালকা ছাল ছাড়িয়ে নিতে হবে। এরপর গ্রাফটিং পদ্ধতি প্রয়োগ করতে হবে। একটা আপেল নিয়ে ওই ছাল ছাড়ানো অংশে হালকা করে কিছুক্ষণ কষে নিতে হবে। এটি রুটিন হরমোন। এরপর একটি বড় তরমুজ কেটে ভিতরের লাল অংশটা আলাদা করে নিতে হবে। কিছুটা মাটি নিয়ে অংশের সাথে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে।

এরপর খোলাটাকে যেখানে গাছের ছাল তোলা হয়েছিল সেখানে আটকিয়ে দিতে হবে। এবার চারপাশে সুন্দর ভাবে মাটির প্রলেপ দিতে হবে। পেয়ারা গাছের জন্য অবশ্য যে কোন মাটি ব্যবহার করেই যেতে পারে। এরপর প্লাস্টিক দিয়ে গ্রাফটিং করা জায়গাটি ঢেকে রাখতে হবে। কিছুদিন পর দেখবেন ওখান থেকে শিকর বিরক্ত শুরু হয়েছে। এরপর গাছটাকে অন্য জায়গায় লাগিয়ে দেবেন। তার জন্য উপরে যেইভাবে বলা হয়েছে ঠিক তেমন ভাবে মাটি তৈরি করে নেবেন।

About Author