লেটেস্ট খবরবিনোদনভাইরাললাইফ স্টাইলঅফবিটরেসিপি

আশ্চর্য হলেও সত্যি, পৃথিবীতে বিদ্যুৎ দেবে মহাকাশে বসানো সোলার প্যানেল?

এবার থেকে মহাকাশ থেকে সৌরশক্তি আহরণ করবে স্যাটেলাইটগুলো। অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। এবার থেকে পৃথিবীতে সৌরশক্তি সরবরাহ করবে এই স্যাটেলাইটগুলো। আশা করা যায় ২০৩৫ সালের ...

Published on:

এবার থেকে মহাকাশ থেকে সৌরশক্তি আহরণ করবে স্যাটেলাইটগুলো। অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। এবার থেকে পৃথিবীতে সৌরশক্তি সরবরাহ করবে এই স্যাটেলাইটগুলো। আশা করা যায় ২০৩৫ সালের মধ্যে এই পরিকল্পনা বাস্তব রূপ পেতে চলেছে। আসলে মহাকাশে স্যাটেলাইটের মাধ্যমে সৌরশক্তি আহরণ করে তা পৃথিবীতে সরবরাহের পরিকল্পনা করেছে এক উদ্যোক্তা। এই সরবরাহ করা হবে ‘মাইক্রোওয়েভ বিমের’ মাধ্যমেই।

WhatsApp Group   Join Now
Telegram Group   Join Now

Solar Panel, আশ্চর্য হলেও সত্যি পৃথিবীতে বিদ্যুৎ দেবে মহাকাশে বসানো সোলার প্যানেল?, আশ্চর্য হলেও সত্যি, পৃথিবীতে বিদ্যুৎ দেবে মহাকাশে বসানো সোলার প্যানেল?

বিদেশী সংস্থা এসইআই এই প্রকল্প নিয়ে কাজ করছে।এই প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে ক্যাসিওপিয়া’। এই সংস্থা মহাকাশে ‘সোলার ফার্ম’ স্যাটেলাইটের নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার চেষ্টায় রয়েছে। এই প্রসঙ্গে সোলটা বিবিসিকে বলেছেন, “তাত্ত্বিক বিবেচনায় ২০৫০ সালে পুরো বিশ্বের বিদ্যুৎ চাহিদা মেটাতে পারবে এটি।কক্ষপথে সৌরশক্তি নির্ভর স্যাটেলাইটের জন্য যথেষ্ট জায়গা আছে, আর সূর্যের শক্তি সরবরাহের সক্ষমতাও বিশাল। ২০৫০ সাল নাগাদ পুরো মানবসভ্যতার যে পরিমাণ বিদ্যুৎ শক্তি প্রয়োজন হবে বলে ভবিষ্যদ্বাণী রয়েছে, বিষুবরেখা বরাবর (মহাকাশের) একটি সরু জায়গাই এক বছরে তার একশ গুণ সৌরশক্তি পায়।

Solar Panel1, আশ্চর্য হলেও সত্যি পৃথিবীতে বিদ্যুৎ দেবে মহাকাশে বসানো সোলার প্যানেল?, আশ্চর্য হলেও সত্যি, পৃথিবীতে বিদ্যুৎ দেবে মহাকাশে বসানো সোলার প্যানেল?

স্যাটেলাইট যে সৌরশক্তি আহরণ করেছে, সেপিকে রেডিও ওয়েভ হিসেবে পৃথিবীর ‘রেকটিফাইং অ্যান্টেনাতে’ পাঠানো হবে। এটি রেডিও ওয়েভকে বিদ্যুৎ শক্তিতে রূপান্তর করবে। এই সোলার প্যানেল গ্রিডে প্রায় দুই গিগাওয়াট বিদ্যুৎ শক্তি যোগ করতে পারবে এক একটি স্যাটেলাইট। বিসিসি জানিয়েছে ‘‘স্পেস সোলার পাওয়ার ইনক্রিমেন্টাল ডেমোনস্ট্রেশন অ্যান্ড রিসার্চ (এসএসপিআইডিআর)’ প্রকল্পের অধীনে মহাকাশ থেকে স্যাটেলাইটের মাধ্যমে সৌরশক্তি আহরণের জন্য অতিগুরুত্বপূর্ণ প্রযুক্তি নির্মাণের কাজ করছে মার্কিন বিমান বাহিনীর নিজস্ব গবেষণা সংস্থা ‘এয়ার ফোর্স রিসার্চ ল্যাবরেটরি’।”

About Author